আল্লাহর প্রতি ঈমান

Allah Iman

বিষয়ঃ ঈমান

আল্লাহ সম্পর্কে তিনি নিজেই পবিত্র কালামে এরশাদ করেছেন তিনিই আল্লাহ, যিনি ব্যতীত অন্য কেউ মা’বুদ (উপাস্য) নেই। তিনি জীবন্তও প্রতিষ্ঠিত, তাঁকে তন্দ্রা ও নিদ্রা স্পর্শ করতে পারে না। আসমান ও যমীনের মধ্যে যা কিছু আছে, সমস্তই তার জন্য। কে এমন আছে যে, তার নির্দেশ ছাড়া তাঁর কাছে সুপারিশ করতে পারে ? তিনি অগ্র-পশ্চাতের সমস্ত কিছু জানেন। আল্লাহর ইচ্ছা ব্যতীত তাঁর ই’লমের সামান্যতম অংশও কেউ আয়ত্ব করতে সক্ষম নয়। তাঁর (জ্ঞানের) সিংহাসন সমস্ত আসমান-যমীন ব্যাপি পরিব্যাপ্ত। তাদের রক্ষণাবেক্ষণ করতে তাঁর একটুও বেগ পেতে হয় না। তিনি বিরাট ও মহান।”
-(সূরা বাকারা আয়াতঃ ২৫৫)

মহান প্রতিপালক আল্লাহ তা’আলা সমস্ত প্রাণী জগতের হায়াত মৃত্যু দানকারী ও পানাহার প্রদানকারী। তিনি আইন-কানুন ও বিধি-বিধান দাতা। জিন ও ইনসান যা কিছু করে ও বলে থাকে এবং যা কিছু অন্তরে গােপন করে রাখে, তিনি সমস্তই জানেন। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বি কেউ নেই। তাঁর ইচ্ছার প্রতিবাদ বা মুকাবিলা করার সাহস বা শক্তি কারাে নেই। এ সকল মহান গুণাবলীর অধিকারী একমাত্র আল্লাহ তা’আলা, তিনি ব্যতীত অন্য কেউ এবাদতের যােগ্য নেই। তিনিই সবকিছুর প্রতিপালক ও এবাদতের মালিক। তিনি চিরস্থায়ী, তার গুণাবলীও চিরস্থায়ী, অনন্তকালব্যাপী আছেন ও থাকবেন। তাঁর কোন শরীক নেই, তিনি অদ্বিতীয়। তিনি নিরাকার ও নিরাহার, তিনি কারাে মুখাপেক্ষী নন, বরং জগতবাসী তাঁর মুখাপেক্ষী।

তিনি দাতা, দয়ালু, ধৈৰ্য্যশীল ও ক্ষমাশালী। আল্লাহর কোন বান্দা অন্যায় করলে তিনি সঙ্গে সঙ্গে শাস্তি দেন না বরং বান্দা ক্ষমা ভিক্ষা চাইলে তিনি তাকে ক্ষমা করে দেন। অতএব, মহান আল্লাহর প্রতি ঈমান স্থাপন করা প্রত্যক মানুষের জন্য ফরয। আল্লাহর প্রতি ঈমানের তাৎপর্য হল, আল্লাহ তা’আলার জাত-সত্বা ও তার সমস্ত ছেফাতী নামসমূহের এবং গুণাবলীর প্রতি জবানের স্বীকৃতিসহ অন্তরে সাথে দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস স্থাপন করা যে, আল্লাহ তাআলাই একমাত্র উপাস্য অর্থাৎ এবাদতের যােগ্য। অতঃপর তাঁর বিধানমত আমল করা।

অর্থাৎ কালেমা তাইয়্যেবা মুখে পাঠ করা, তা অন্তরে বিশ্বাস করা এবং আমলের দ্বারা কার্যে পরিণত করা। একেই আল্লাহর প্রতি ঈমান বলা হয়।

Hazrat Maolana Sumsul Haque, Mina Book House

Leave a Reply