নামায ভঙ্গের ১৯টি কারণ


namaj vangar karonযে সকল কারনে নামায ভঙ্গ হয় বা যে সকল কাজ দ্বারা নামায নষ্ট হয়, তাকে “মোফছেদাতে নামাজ” বলে । ঐরূপ কাজ করিলে নামায পুনরায় পড়তে হয় । আমরা মুসলমান আর একজন মুসলমান হিসেবে সবারই উচিৎ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ মসজিদে গিয়ে আদায় করা।কারণ মানুষের মৃত্যুর পর সর্ব প্রথম আল্লাহতাআলা নামাযের হিসাব নিবেন।কিন্তু আমরা অনেকেই নামাযের সঠিক নিয়ম কানুন জানিনা।

নামাজ সঠিক হওয়ার জন্য যেমন, কিছু নিয়ম আছে, ঠিক তেমনি এমন কিছু বিষয় আছে যা করলে নামাজ ভেঙ্গে যায় ।আজকে আমরা নামাজ ভাঙ্গার কারনগুলি জানবোঃ

নামায ভঙ্গের ১৯টি কারণসমূহঃ

১.  নামাযে অশুদ্ধ পড়া। 
২.  নামাযের ভিতর কথা বলা। 
৩.  কোন লোককে সালাম দেওয়া। 
৪.  সালামের উত্তর দেওয়া। 
৫.  উহঃ আহঃ শব্দ করা। 
৬.  বিনা উযরে কাশি দেওয়া। 
৭.  আমলে কাছীর করা। 
৮.  বিপদে কি বেদনায় শব্দ করিয়া কাদা। 
৯.  তিন তাসবীহ পরিমাণ সময় সতর খুলিয়া থাকা। 
১০. মুক্তাদি ব্যতীত অপর ব্যক্তির লুকমা নেওয়া। 
১১. সুসংবাদ ও দুঃসংবাদের উত্তর দেওয়া। 


১২. নাপাক জায়গায় সিজদা করা। 
১৩. ক্বিবলার দিক হইতে সীনা ঘুরিয়া যাওয়া। 
১৪. নামাযে কুরআন শরীফ দেখিয়া পড়া। 
১৫. নামাযে শব্দ করিয়া হাসা। 
১৬. নামাযে দুনিয়াবী কোন কিছুর প্রার্থনা করা। 
১৭. হাচির উত্তর দেওয়া 
     (জওয়াবে “ইয়ারহামুকাল্লাহ” বলা)। 
১৮. নামাযে খাওয়া ও পান করা। 
১৯. ইমামের আগে মুক্তাদি দাড়ানো বা খাড়া হওয়া।

বিভিন্ন প্রাসঙ্গিক বিষয় জানতে ভিজিট করুন www.prosno.xyz | সাথেই থাকুন www.IslamBangla.Com ভিজিট করতে থাকুন ।